Friday, March 20, 2020

ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনে রাখার মোক্ষম সময়

ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনে রাখার মোক্ষম সময়

ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনে রাখার মোক্ষম সময়
Friday, March 20, 2020

ক্রিপ্টোকারেন্সি 

ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনে রাখার মোক্ষম সময় | Capable of buying cryptocurrency.


ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনে রাখার মোক্ষম সময় -sudiptoblog
Sudiptoblog.com

ক্রিপ্টোকারেন্সি কি ?


আমরা আজকে জানবো ক্রিপ্টোকারেন্সি সম্পর্কে কারেন্সি কথাটির অর্থ হলো যে কোন দেশের অর্থ কে বোঝায়, আর ক্রিপ্টোকারেন্সি হল একটি অনলাইন অর্থের মাধ্যম আমরা ক্রিপ্টোকারেন্সি হাতে পেতে পারি না কিন্তু যেকোনো দেশের অর্থ আমরা সহজেই পকেটে নিতে পারি । এই ক্রিপ্টোকারেন্সি ইন্টারনেটের মাধ্যমে এক দেশ থেকে অন্য দেশে ইন্টারনেটের মাধ্যমে লেনদেন করা যায় ।

ক্রিপ্টোকারেন্সি এর ব্যবহার ?


প্রতিটি দেশের যেমন  অর্থের একটি মান থাকে তেমনিভাবে ক্রিপ্টোকারেন্সি এর ভিন্ন ভিন্ন মান থাকে তবে বিভিন্ন ক্রিপ্টোকারেন্সি কোম্পানির যত বেশি পৃথিবীতে মানুষ ব্যবহার করবে ততবেশি কোম্পানির কারেন্সির দাম বৃদ্ধি পাবে। তেমনিভাবে আপনি যদি কোন ধরনের কারেন্সি কিনে থাকেন । তবে আপনি অবশ্যই এসব জনপ্রিয় কারেন্সি সম্পর্কে জেনে থাকবেন নিচে কয়েকটি কারেন্সির নাম দেওয়া হল -
বিটকয়েন,ইথেরিয়াম ,লাইট কয়েন, বিটকয়েন গোল্ড ,বিনান্স কয়েন,

বিভিন্ন দেশে ইন্টার্নেশনাল ট্রানজেকশন এর জন্য অনেক সময় ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করা হয় । যার মাধ্যমে টাকা এক দেশ থেকে অন্য দেশে পাঠাতে পারবেন অথবা নিতে পারবেন শুধুমাত্র একটি ক্লিকের মাধ্যমে । যা কিনা আধুনিক ভাবে পৃথিবী কে পাল্টে দিচ্ছে পাল্টে দিচ্ছে । মানুষের নিত্যদিনের কর্মকে যার মাধ্যমে সহজে উঠেছে মানুষের জীবন।


ক্রিপ্টোকারেন্সি  বৈধতা ?


বিশ্বের প্রভাবশালী দেশগুলো এই ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করে থাকে এদের ভিতর উল্লেখযোগ্য দেশগুলো ইউনাইটেড স্টেট অফ আমেরিকা তাছাড়া আমেরিকার সকল দেশগুলো ও ইউরোপের দেশগুলো ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করে থাকে যার ফলে ক্রিপ্টোকারেন্সি পৃথিবীতে বলতে গেলে প্রায় সকল দেশেই চলে ।

 তবে আমাদের দেশ বাংলাদেশ ও প্রতিবেশী দেশ ইন্ডিয়াতে ক্রিপ্টোকারেন্সি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে alert-warning

পৃথিবীতে প্রভাবশালী দেশগুলো  ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করলেও আমাদের দেশে এর কোনোো বৈধতা নাই।

 তবে অনেকেই ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করে থাকে যার মাধ্যমে কিছু অর্থ উপার্জন করা যায় ।

ক্রিপ্টোকারেন্সি অবৈধতা ?

অবৈধতা  কথাটি প্রতিটি কাজের মধ্যে পাওয়া যায় আজকাল একটি মুদ্রার এপিঠ ও ও পিঠ ।ক্রিপ্টোকারেন্সি এর যেমন ভালো দিক রয়েছে তেমনি খারাপ দিক রয়েছে । আপনি ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করে  বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে পণ্য ক্রয় করতে পারবেন । তেমনি ভাবে কিছু অসাধু লোকজন তারা তাদের অসাধু কাজের জন্য বিভিন্ন দেশের কারেন্সি আজ অবৈধ হয়েছে, বিভিন্ন অসাধু চক্রের কারণে দেশ থেকে বিদেশে ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যবহার করে টাকা পাচার  করছিল যা সরকার বুঝতে পেরে দেশ থেকে  ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যান করে দিয়েছে । যার ফলে অনেক ঝুঁকিতে পড়েছে লোকজন। ঝুঁকিতে পড়েছে আউটসোর্সিং করা মানুষগুলো।

ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনে ইনকাম করার উপায় ?


পোস্টটির টাইটেল দেখে বুঝতে পেরেছেন ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনে  কিভাবে ইনকাম করতে হয় তা যদি জানা না থাকে তবে পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ুন আশা করি সব বুঝতে পারবেন।

ভিউয়ার্স আপনাদের ইনকামের জন্য ভালো একটি রাস্তা এই ক্রিপ্টোকারেন্সি অনেক ইউটিউবার দেখবেন ক্রিপ্টোকারেন্সি ইনকাম করার বিভিন্ন ধরনের ভিডিও দিয়ে থাকে যার মাধ্যমে আপনারা ক্রিপ্টোকারেন্সি ইনকাম করতে পারবেন পরবর্তীতে তা বিক্রি করে বিকাশে এর মাধ্যমে আপনার পকেটের টাকা দিতে পারবেন তবে ইউটিউবারদের দেখানো রাস্তা অনুকরণ করে আপনারা বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন না হয়তো আপনাদের এমবি কেনার টাকা টাও হবে না 

>>>>>>>  তার জন্য সবথেকে উত্তম উপায় আপনারা যদি ক্রিপ্টোকারেন্সি এর উপর টাকা ইনভেস্ট করে রাখতে পারেন বেশ কিছু ওয়েবসাইট আছে 

 1.coinmarketcap.com
 2.coincap.io
 3.coinbase.com

যেখানে আপনারা দেখতে পারবেন ক্রিপ্টোকারেন্সি এর দাম আপনারা দেখলেই বুঝতে পারবেন এদের মার্কেট প্রাইস কেমন একটা বিটকয়েন 20000 ডলার পর্যন্ত দাম উঠেছিল মার্কেটে

এই বিটকয়েনের একটা গল্প বলি আপনাদের আমেরিকান এক ব্যক্তি প্রথম প্রথম বিটকয়েন যখন বাজারে আসে তখন তিনি 10000 বিটকয়েন কিনেছিল মাত্র 45 ডলার এবং কিছুদিন পরে সে ব্যক্তি বিটকয়েন গুলো বিক্রি করে দেয় এবং সে টাকা দিয়ে বন্ধুদের সাথে পিজ্জা কিনে খেয়েছিল সে সময় থেকে এক বছর পরে একটি বিটকয়েন এর দাম উঠে বাজারে 12 হাজার ডলার

এক বছর পরে যখন ব্যক্তিটি জানতে পারি একটি বিটকয়েন এর দাম 12 হাজার ডলার তখন সে তার এই পিজ্জা খাবার গল্পটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে থাকে এবং আফসোস করতে থাকে

তাই বর্তমানে বাজারে বিটকয়েন সহ সকল ক্রিপ্টোকারেন্সি এর দাম কমে আছে তাই যখনই ক্রিপ্টোকারেন্সি এর দাম কমে আসবে তখনই আপনারা ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনে রাখতে পারেন এবং এক থেকে দুই মাস পরে দেখবেন আপনার টাকার পরিমাণ দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে এক মাস নয় বা দুই মাস নয় শুধু মাত্র দুই দিনেই আপনাাার টাকার পরিমাণ দ্বিগুণ থেকে তিন গুণ  হতে পারে এটি কোন অসম্ভব কিছু না এটি আগেও হয়েছে এখনো চলছে এমনকি ভবিষ্যতেও চলবে বলে আশা রাখি

তাই আপনারা ক্রিপ্টোকারেন্সি সম্পর্কে যাদের ধারণা আছে তারা সঠিক সময়ে ইনভেস্ট করে দাম বেড়ে গেলে আপনার টাকা আপনি উইথড্র করে নিতে পারবেন তাই ক্রিপ্টোকারেন্সি কেনার সঠিক সময় যখন ক্রিপ্টোকারেন্সি টি এর দাম কমে যাবে তখনই আপনারা ইনকামের জন্য এ পদ্ধতিতে ফলো করতে পারেন 

আমাদের ওয়েবসাইটটি আপনাদের ভালো লেগে থাকলে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নিত্য নতুন সকল ধরনের টিপস ট্রিক্স পেতে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন এবং আমাদের পোষ্ট ভাল লেগে থাকলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুনl
ক্রিপ্টোকারেন্সি কিনে রাখার মোক্ষম সময়
4/ 5
Oleh

Comments